হৃদরোগে আক্রান্ত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বাইপাস সার্জারি করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসক দলমঙ্গলবার (মার্চ) স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে বারোটার দিকে ব্রিফিংয়ে তথ্য জানান তারা

এক সপ্তাহের মধ্যে অস্ত্রোপচার করা হবে বলে জানিয়েছেন তার সঙ্গে থাকা বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের চিকিৎসক আব্দুল নাসের রিজভী।

মাউন্ট এলিজাবেথের হৃদরোগ বিভাগের বিশেষজ্ঞ ডা. ফিলিপ কোহ’র নেতৃত্বে এরই মধ্যে গঠিত হয়েছে একটি মেডিকেল বোর্ড। তারা জানিয়েছেন, রক্তচাপসহ কিছু দিকে উন্নতি হওয়ায় ওবায়দুল কাদেরকে দেয়া কৃত্রিম উচ্চচাপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের মাত্রা কমিয়ে আনা হচ্ছে। তবে সার্বিকভাবে তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলেও কিডনিসহ কিছু সংক্রমণ রয়ে গেছে। সংক্রমণ সারিয়ে তোলা গেলে এক সপ্তাহের মধ্যে বাইপাস সার্জারি সম্ভব বলে জানান তারা।

ফিলিপ কোহ’র নেতৃত্বে গঠিত মেডিকেল বোর্ড এ তথ্য জানিয়েছে, কার্ডিয়াক কন্ডিশন আগের থেকে ইম্প্রুভ করছে, সাথে একটু ইনফেকশন আছে তার। কিডনি সমস্যাও আছে। তাকে এখনও টিউব পরিয়ে রাখা হয়েছে, এখনও টিউব উঠানোর মত অবস্থায় নাই। এ অবস্থায় রাখলে ঘুম পাড়ানোর ওষুধ দিয়ে রাখতে হয়।

তারা আরো জানান, হেমোডাইনেমেক্যালি তার স্ট্যাবিলিটি আস্তে আস্তে হচ্ছে। এটা ক্রমান্বয়ে ভালো করছে। ব্লাড প্রেসারটা আগের থেকে স্থিতিশীল হয়েছে। একই সাথে কৃত্রিম প্রেসার নিয়ন্ত্রণের যন্ত্রের মাত্রা আস্তে আস্তে কমিয়ে আনা হচ্ছে।

সার্জারির জন্য প্রস্তুত হতে আর ৫-৭ দিন সময় লাগবে বলে ধারণা করেছে মেডিকেল টিম।

সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত ৯টার কিছু আগে সিঙ্গাপুরে পৌঁছন অসুস্থ ওবায়দুল কাদেরকে বহনকারী এয়ার অ্যাম্বুলেন্স। সেখানে থেকে সরাসরি তাকে নিয়ে যাওয়া হয় মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে। হাসপাতালের হৃদরোগ বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. ফিলিপ কোহর অধীনে চিকিৎসা শুরু হয় তার। ভারতের বিখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. দেবী শেঠির পরামর্শে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল থেকে সিঙ্গাপুর নেয়া হয় ওবায়দুল কাদেরকে।